শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ০৩:১৮ অপরাহ্ন

দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা কমপ্লেক্সে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ

রির্পোটারের নাম
  • খবর আপডেট সময় শুক্রবার, ২১ জুন, ২০২৪
  • ৪০ এই পর্যন্ত দেখেছেন

জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা কমপ্লেক্সের সকল অফিস ও বাসায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রেখেছে দেওয়ানগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি। পল্লীবিদ্যুতের দুই সদস্য উপজেলা কমপ্লেক্সে দায়িত্বপালন কালিন আনসার সদস্য কর্তৃক প্রহৃত ও লাঞ্চিত হওয়ার প্রতিবাদে ২০ জুন থেকে দেওয়ানগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা কমপ্লেক্সের সকল অফিস ও বাসায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রাখে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে থানায় জিডি করেছেন ইউএনওর নিরাপত্তায় দায়িত্বে নিয়োজিত আনসার সদস্য খাইরুল ইসলাম।
জানা যায়, দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা কমপ্লেক্সে সরকারি বিভিন্ন অফিসের ৪০-৫০ জন গ্রাহকের কাছে পল্লী বিদ্যুতের প্রায় দুই বছরের বিদ্যুৎ বিল বকেয়া রয়েছে। ২০ জুন দুপুরে পল্লী বিদ্যুতের এজিএম শেখ ফরিদের নির্দেশে পল্লী বিদ্যুতের লাইন টেকনিশিয়ান ইকবাল হোসেন ও শাহ জামাল ইয়াছিন বকেয়া বিল আদায় করতে যান দেওয়ান উপজেলা কমপ্লেক্সে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাহিদ হাসান প্রিন্স ছুটিতে থাকায় দায়িত্বশীল কাউকে না পেয়ে পল্লী বিদ্যুতের লাইন টেকনিশিয়ান ইকবাল হোসেন ও শাহ জামাল ইয়াছিন বিষয়টি পল্লী বিদ্যুতের এজিএম শেখ ফরিদকে অবগত করেন। এজিএম শেখ ফরিদ বিষয়টি অবগত হয়ে পল্লী বিদ্যুতের দুই লাইন টেকনিশিয়ানকে দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা কমপ্লেক্সের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার নির্দেশনা দেন। এজিএম শেখ ফরিদের নির্দেশ মোতাবেক পল্লী বিদ্যুতের লাইন টেকনিশিয়ান ইকবাল হোসেন ও শাহ জামাল ইয়াছিন দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা কমপ্লেক্সের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার উদ্যোগ নেন। কিন্তু উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত আনসার সদস্য খাইরুল ইসলাম বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন করতে বাধা দেন। এক পর্যায়ে আনসার সদস্য খাইরুল ইসলাম ছুটিতে থাকা উপজেলা নির্বাহী অফিসার জাহিদ হাসান প্রিন্সের মোবাইলে কল করে উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে বিষয়টি অবগত করেন। মোবাইলে কথা শেষ করার পরেই আনসার সদস্য খাইরুল ইসলাম ও পল্লীবিদ্যুতের দুই টেকনিশিয়ানের মধ্যে বাকবিতন্ডা ও ধ্বস্তাধ্বস্তি শুরু হয়। এক পর্যায়ে আনসার সদস্য খাইরুল ইসলাম নিজ উদ্যোগে পল্লী বিদ্যুতের লাইন টেকনিশিয়ান ইকবাল হোসেনকে খুঠিঁর সাথে দঁিড় দিয়ে বেধেঁ মারধর শুরু করেন। পরে এলাকার লোকজনের সহায়তায় আনসার সদস্যের হাত থেকে পল্লীবিদ্যুতের দুই কর্মচারী উদ্ধার হয়। এর প্রতিবাদে দে ২০ জুন থেকে দেওয়ানগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা কমপ্লেক্সের সকল অফিস ও বাসায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রাখে। এ ঘটনায় দেওয়ানগঞ্জ মডেল থানায় জিডি করেছেন ইউএনওর নিরাপত্তায় দায়িত্বে নিয়োজিত আনসার সদস্য খাইরুল ইসলাম। জিডিতে পল্লী বিদ্যুতের লাইন টেকনিশিয়ান ইকবাল হোসেন ও শাহ জামাল ইয়াছিনকে অভিযুক্ত করা হয়েছে। জিডি নং ৭৫৭, তারিখ ২০.০৬.২০২৪।
এব্যাপারে আনসার সদস্য খাইরুল ইসলাম জানান, পল্লী বিদ্যুতের লাইন টেকনিশিয়ান ইকবাল হোসেন ও শাহ জামাল ইয়াছিন নিজেদের পরিচয় না দিয়ে সরাসরি আনসার ব্যারাকে প্রবেশ করে আমার সাথে অশালিন আচরণ করেন। নিরাপত্তার বিষয়টি বিবেচনা করে আমি প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করি। বিষয়টি নিয়ে দেওয়ানগঞ্জ থানায় জিডি করেছি। পুলিশি তদন্ত চলমান আছে।
দেওয়ানগঞ্জ পল্লী বিদ্যুতের এজিএম শেখ ফরিদ জানান, আমাদের দুই সদস্যকে চরমভাবে লাঞ্চিত করার প্রতিবাদে ২০ জুন থেকে দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা কমপ্লেক্সের সকল অফিস ও বাসায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। বিষয়টির সম্মানজনক সমাধান না হওয়া পর্যন্ত বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ থাকবে।
এব্যাপারে দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ জানান, বিষয়টি জেলা প্রশাসক মহোদয় অবগত আছেন। স্বল্প সময়ের মধ্যে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমেই ঘটনার সম্মানজনক সমাধান হবে। দুই পক্ষের মধ্যে আলোচনা চলমান আছে।

দয়া করে খবরটি শেয়ার করুর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরিতে আরো যেসব খবর রয়েছে
© কপিরাইট ২০১৭ গণজয়
CodeXive Software Inc.
themesba-lates1749691102