বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১২:১৪ অপরাহ্ন

ফেসবুকের নতুন নাম মেটা

রির্পোটারের নাম
  • খবর আপডেট সময় শুক্রবার, ২৯ অক্টোবর, ২০২১
  • ২৯৬ এই পর্যন্ত দেখেছেন

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকের নাম পরিবর্তন করে নতুন নাম ‘মেটা’ রাখা হয়েছে। ফেসবুকের প্রধান মার্ক জাকারবার্গ বৃহস্পতিবার ঘোষণা করেছেন যে মূল কোম্পানির নাম পরিবর্তন করে ‘মেটা’ করা হচ্ছে শুধুমাত্র তার সমস্যাযুক্ত সামাজিক নেটওয়ার্কের বাইরে ভবিষ্যতের প্রতিনিধিত্ব করার জন্য। আমরা সামাজিক সমস্যাগুলির সাথে লড়াই করে এবং বন্ধ প্ল্যাটফর্মের অধীনে জীবনযাপন করার থেকে অনেক কিছু শিখেছি, এবং এখন সময় এসেছে আমরা যা শিখেছি তা গ্রহণ করার এবং পরবর্তী অধ্যায় তৈরিতে সহায়তা করার, জুকারবার্গ একটি বার্ষিক বিকাশকারী সম্মেলনের সময় বলেছিলেন। আমাদের অ্যাপ এবং তাদের ব্র্যান্ডগুলি, তারা পরিবর্তন করছে না, তিনি যোগ করেছেন।
আর আগে, মেটাভার্সে ফেসবুকের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম সেবা পাওয়া যাবে ভার্চ্যুয়াল জগতে, যে জগতে ব্যবহারকারীরা যুক্ত হয়ে বাস্তব দুনিয়ার মতো একে অপরের সঙ্গে কথোপকথন চালাতে পারবেন, একসঙ্গে কিছু কিছু কাজও হয়তো করতে পারবেন। ভার্চ্যুয়াল আর বাস্তব জগতের বিভেদ কমে যাবে বলা হচ্ছে, যা অগমেন্টেড এবং ভার্চ্যুয়াল রিয়েলিটি প্রযুক্তির সাহায্যে সম্ভব হবে।
‘মেটা’ ফেসবুকের সাবেক কর্মকর্তা সামিদ চক্রবর্তীসহ অনেকে এ নাম প্রস্তাব করেছিলেন। তা ছাড়া মেটা ডটকমে ঢুকলে সেটি মেটা ডট অর্গ ওয়েবসাইটে নিয়ে যায়। চ্যান জাকারবার্গ ইনিশিয়েটিভের উদ্যোগে বায়োমেডিকেল গবেষণা নিয়ে কাজ করা প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইট সেটি। দাতব্য সংস্থাটি প্রতিষ্ঠা করেন মার্ক জাকারবার্গ ও তাঁর স্ত্রী প্রসিলা চ্যান।
‘মেটা’ ফেসবুকের সাবেক কর্মকর্তা সামিদ চক্রবর্তীসহ অনেকে এ নাম প্রস্তাব করেছিলেন। তা ছাড়া মেটা ডটকমে ঢুকলে সেটি মেটা ডট অর্গ ওয়েবসাইটে নিয়ে যায়। চ্যান জাকারবার্গ ইনিশিয়েটিভের উদ্যোগে বায়োমেডিকেল গবেষণা নিয়ে কাজ করা প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইট সেটি। দাতব্য সংস্থাটি প্রতিষ্ঠা করেন মার্ক জাকারবার্গ ও তাঁর স্ত্রী প্রসিলা চ্যান।
দ্য ভার্জের প্রতিবেদনে ব্র্যান্ড পুনর্গঠনের উদ্দেশ্য হিসেবে মেটাভার্সের কথাই বলা হয়েছে। সে ক্ষেত্রে নতুন একটি মাতৃপ্রতিষ্ঠান গঠন করে ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম, হোয়াটসঅ্যাপ, মেসেঞ্জারসহ প্রতিষ্ঠানটির সব সেবা সেটির অধীন আনা হতে পারে। গুগলের সব সেবা যেমন ‘অ্যালফাবেট’ নামের প্রতিষ্ঠান গঠন করে সেটির অধীন নিয়ে যাওয়া হয় ২০১৫ সালে।
দ্য ভার্জের প্রতিবেদনে ব্র্যান্ড পুনর্গঠনের উদ্দেশ্য হিসেবে মেটাভার্সের কথাই বলা হয়েছে। সে ক্ষেত্রে নতুন একটি মাতৃপ্রতিষ্ঠান গঠন করে ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম, হোয়াটসঅ্যাপ, মেসেঞ্জারসহ প্রতিষ্ঠানটির সব সেবা সেটির অধীন আনা হতে পারে। গুগলের সব সেবা যেমন ‘অ্যালফাবেট’ নামের প্রতিষ্ঠান গঠন করে সেটির অধীন নিয়ে যাওয়া হয় ২০১৫ সালে।
‘মেটা’ নামটি গ্রহণের সম্ভাব্য আরেকটি কারণ হলো, সিলিকন ভ্যালির প্রতিষ্ঠানগুলো সংক্ষিপ্ত নাম পছন্দ করে। এটাকে মর্যাদাকর মনে করে তারা। অ্যালফাবেটের ওয়েবসাইট ঠিকানা যেমন এবিসি ডট এক্সওয়াইজেড। আর তা ছাড়া, মেটা নাম ব্যবহার করলে সেটাকে মেটাভার্সের সংক্ষিপ্তরূপ হিসেবেই দেখবে মানুষ।
২০১৭ সালে মেটা নামের একটি প্রতিষ্ঠান অধিগ্রহণ করে চ্যান জাকারবার্গ ইনিশিয়েটিভ। গবেষণাপত্র খোঁজার জন্য কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা প্রযুক্তির উন্নয়নে কাজ করছিল প্রতিষ্ঠানটি। তাদের ওয়েবসাইটের ঠিকানা মেটা ডট অর্গ। দ্য ভার্জের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ফেসবুকের নতুন নাম জানা যাবে ২৮ অক্টোবরের মধ্যে।

দয়া করে খবরটি শেয়ার করুর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই ক্যাটাগরিতে আরো যেসব খবর রয়েছে
© কপিরাইট ২০১৭ গণজয়
CodeXive Software Inc.
themesba-lates1749691102